বাংলা ও বিশ্বের সকল খবর এখানে
শিরোনাম

অবশেষে সৌদির আকাশপথ দিয়েই গেল ইসরাইলি সেই ফ্লাইট

সৌদি আরবের আকাশপথ ব্যবহার করেই প্রথম ইসরাইলি বাণিজ্যিক ফ্লাইট আমিরাতের মাটিতে অবতরণ করল। এর আগে আমিরাতের মাটিতে ইহুদি রাষ্ট্রের ফ্লাইট চলাচলের রুট নিয়ে জল্পনা-কল্পনা ছিল। তবে মার্কিন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল, সৌদি আরবের ওপর দিয়ে ফ্লাইট চলাচলের চিন্তা করছে তারা।

সোমবার ইসরাইলি এল আল ফ্লাইটটি তেলআবিবের গুরিয়ন বিমানবন্ধর থেকে আবুধাবির উদ্দেশ্য রওয়ানা করে। এতে করে ইসরাইলি ও মার্কিন প্রতিনিধিদল আমিরাত আসেন।

সংযুক্ত আরব আমিরাতে ঐতিহাসিক বৈঠকে অংশ নিতেই দুই দেশের প্রতিনিধি দল বিশেষ ওই ফ্লাইটটিতে করে আবুধাবি বিমানবন্দরে পৌঁছান।

ইসরাইল-মার্কিন প্রতিনিধি দলটির নের্তৃত্ব দিচ্ছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জামাতা ও তার জেষ্ঠ্য উপদেষ্টা জ্যারেড কুশনার। এছাড়া এ দলে আসেন, মার্কিন নিরপিত্তা উপদেষ্টা রবার্ট ও’ব্রেইন ও ইসরাইলের জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিলের প্রধান মেয়ার বেন শাব্বাত।

কুশনার ফ্লাইটটিকে ঐতিতিহাসিক বলে বর্ণনা করেন: যা আরব ও ইসলামিক বিশ্বের প্রত্যেকে দেখছে।

ইসরাইলি সম্প্রচার কর্পোরেশনকে কুশনার বলেন, এটি একটি খুব আশাব্যঞ্জক সময়। আমি বিশ্বাস করি এই অঞ্চল ও বিশ্বজুড়ে অনেক বেশি শান্তি ও সমৃদ্ধি সম্ভব।

যুক্তারাষ্ট্রের মধ্যস্ততায় ১৩ আগস্ট আরব আমিরাতের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক হওয়ার পর প্রথম ইসরাইলি ফ্লাইট সোমবার আবুধাবি বিমানবন্দরে অবতরণ করল।

সম্প্রতি আরব আমিরাতের সঙ্গে ইসরাইলের সম্পর্ক স্বাভাবিককরণের চুক্তি হয়। এতে মধ্যাস্থতা করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। দুই দেশের মধ্যে আলোচনার অংশ হিসেবে উভয়ের মধ্যে দূতবাস চালু ও ব্যবসা-যোগাযোগসহ অন্যন্য বিষয় চুক্তিতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়।

লাইটনিউজ