সোমবার, ০৩ অক্টোবর ২০২২, ০৭:৫৩ অপরাহ্ন

সাবেক প্রতিমন্ত্রীর বাসাসহ ঢাকার ৯ এলাকা লকডাউন

লাইটনিউজ রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ৭ এপ্রিল, ২০২০

লাইট নিউজ প্রতিবেদক : করোনাভাইরাসে নতুন করে সংক্রমিত রোগীর সন্ধান পাওয়ায় রাজধানীর ৯টি পৃথক এলাকার বিভিন্ন আবাসিক ভবন লকডাউন করা হয়েছে। এর মধ্যে সাবেক এলজিআরডি প্রতিমন্ত্রী ও লক্ষ্মীপুর-১ আসনের বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য জিয়াউল হক জিয়ার রাজধানীর মোহাম্মদপুরের রাজিয়া সুলতানা রোডের বাসাও রয়েছে।

শুধু মোহাম্মদপুরেই পাঁচটি সড়কের আটজন করোনা আক্রান্ত বলে খবর পাওয়া গেছে। লকডাউনের পর ওই এলাকায় কাউকে ঢুকতে ও বের হতে দিচ্ছে না পুলিশ।

করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে যে এলাকায় রোগী পাওয়া যাচ্ছে, সে এলাকা পুরোপুরি লকডাউনের নির্দেশনা ইতিমধ্যে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, যাতে ছোঁয়াচে রোগটি আরও ছড়িয়ে পড়তে না পারে। এরই মধ্যে নতুন করে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪১ জন। এর মধ্যে ২০ জনই ঢাকার বলে জানিয়েছে আইইডিসিআর।

পুলিশ জানিয়েছে, মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) পুরান ঢাকা, মোহাম্মদপুর, আদাবর, বছিলা, বাড্ডা ও বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার বিভিন্ন ভবন লকডাউন করে পুলিশ।

এর আগে মঙ্গলবার দুপুরে মোহাম্মদপুর থানা পুলিশ ও আইইডিসিআরের কর্মকর্তারা পৌঁছে সংক্রমিত হওয়া রোগীদের ভবনসহ এবং পুরো রোড লকডাউনের নির্দেশ দেন।

মোহাম্মদপুর জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার (এসি) মো. রওশানুল হক বলেন, মঙ্গলবার বিকেলে মোহাম্মদপুরের রাজিয়া সুলতানা রোড, কৃষি মার্কেটের সামনে, তাজমহল রোডের ২০ সিরিয়াল রোড, বাবর রোডের কিছু অংশ, আদাবর ও বসিলার পশ্চিম অংশ লকডাউন করা হয়েছে। এসব এলাকা ঘিরে লাল ফিতা, পতাকা লাগিয়ে চলাচলে কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা হয়েছে। ঘনঘন মাইকিং করা হচ্ছে।

অন্যদিকে পুরান ঢাকায় খাজে দেওয়ান লেনে একটি মসজিদ কমিটির সহ-সভাপতি ও এক নারীর করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিশ্চিত হওয়ায় ওই এলাকার দুশ ভবন লকডাউন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন চকবাজার থানার ওসি মওদূত হাওলাদার।

তিনি বলেন, ওই ব্যক্তি মসজিদ কমিটির সহসভাপতি। তিনি বিভিন্ন মানুষের সঙ্গে মেলামেশা করেছেন। একই লেনের এক নারী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। যদিও তিনি বাইরে যেতেন না। হয়তো তার স্বামী-সন্তান ভাইরাসের বাহক। দুই ঘটনায় খাজে দেওয়ান লেন ও দুই নম্বর গলি লকডাউন করা হয়েছে।

অন্যদিকে গুলশানের উত্তর বাড্ডার খানবাগ রোডের এক ব্যক্তির শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্তের পর ওই ভবনটি লকডাউন করা হয়েছে বলে জানান ডিএমপির গুলশান বিভাগের উপ-কমিশনার সুদীপ কুমার চক্রবর্তী।

এছাড়াও বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় এক নারী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় লকডাউন করা হয়েছে তার বসবাসের ভবনটি।

 

লাইটনিউজ/ইকে

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Lightnewsbd

Developer Design Host BD