বাংলা ও বিশ্বের সকল খবর এখানে
শিরোনাম

২০ সঙ্গিনী নিয়ে চারতারকা হোটেলে আইসোলেশনে থাই রাজা

স্ত্রীদের সেখানে প্রবেশের অনুমতি নেই!

লাইট নিউজ ডেস্ক : মহামারী সব কিছুই কেড়ে নেয়ার উপক্রম। কিন্তু রাজকীয় মেজাজ কি এত সহজে যাবার? নয় বলেই করোনা ভাইরাসে বিশ্বব্যাপী লকডাউনেও রাজকীয় বিলাসব্যসনের আয়োজন থাইল্যান্ডের রাজার জন্য। মহামারী থেকে বাঁচতে আত্মবিচ্ছিন্ন হয়ে জার্মানির একটি চারতারা হোটেলে উঠেছেন মহা বাজিরালংকর্ন। বিচ্ছেদেও কিন্তু মিলনের আয়োজনের কমতি নেই! ২০ জন সঙ্গিনী সেখানে ঘিরে রয়েছেন তাঁকে। আর বউয়েরা? তাঁদের নাকি সংক্রমণ থেকে বাঁচাতে সাময়িক পতিসেবা থেকে বিরত রেখেছেন রাজা!

বিরুষ্কা থেকে মালালা, লকডাউনে হেয়ার কাটিংয়েই বদলাচ্ছেন একঘেয়ে জীবন?

জার্মানির এক সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ, স্থানীয় জেলা পরিষদের অনুমতি নিয়েই নাকি বিলাসের এই আয়োজন ৬৭ বছর বয়সী রাজার! এই মুহূর্তে তিনি বাভারিয়ায় গ্র্যান্ড হোটেল সোনেনবিচেলে। পুরো হোটেল বুক করেছেন তিনি। সঙ্গী ২০ জন সঙ্গিনী এবং বেশ কয়েকজন ভৃত্য। স্ত্রীদের সেখানে প্রবেশের অনুমতি নেই!

এখানেই শেষ নয়। রাজার স্বাস্থ্যের কারণে এই অঞ্চলের অন্যান্য সমস্ত হোটেল বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। রাজার এক মুখপাত্র বলেছেন, যে গ্র্যান্ড হোটেল সোনেনবিচেল এই নির্দেশের বাইরে। কারণ, এই হোটেলের গণ্যমান্য অতিথিরা নাকি এভাবেই থাকেন! রাজার এই ‘সুখ’ যদিও কাঁটার মতোই বিঁধেছে সেদেশের প্রজাদের চোখে। তাঁরা মোটেই খুশি নন রাজার আচরণে।