বাংলা ও বিশ্বের সকল খবর এখানে
শিরোনাম

ওয়ালটনের ত্রাণ নিয়ে মহল বিশেষের অপপ্রচার

লালমনিরহাট প্রতিবেদক : লালমনিরহাটের হাতিবান্ধায় ওয়ালটনের ত্রাণ বিতরণ নিয়ে একটি বিশেষ মহল অপপ্রচার চালাচ্ছে।

মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) বিষয়টি ওয়ালটন কর্তৃপক্ষের নজরে আসে। এর আগে গত রোববার ও সোমবার বিভিন্ন প্রচারমাধ‌্যম ব‌্যবহার করে উদ্দেশ‌্যমূলক অপপ্রচার চালায় ওই মহল।

এসব প্রচারমাধ্যমে বলা হয়েছে, লালমনিরহাটের হাতিবান্ধায় ওয়ালটনের শোরুমের পক্ষ থেকে ত্রাণ বিতরণের কথা প্রচার করা হয়। লোকজন ত্রাণ নিতে এলে তাদের ছবি ও ভিডিও ধারণ করা হয়। পরে ত্রাণ না দিয়েই তাদের বিদায় করে দেয় ওয়ালটন।

এ বিষয়ে ওয়ালটনের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে- এমন কোনো ঘটনা সেখানে ঘটেইনি। বরং ওয়ালটন নিজস্ব অর্থায়নে, নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় সারাদেশের প্রায় ২০ হাজার পয়েন্ট থেকে ত্রাণ বিতরণ করছে। পাশাপাশি করোনা থেকে নিরাপদে থাকার বিভিন্ন সুরক্ষা সামগ্রীও বিতরণ করছে।

প্রকৃত ঘটনা হলো- ওয়ালটনের হাতিবান্ধা প্লাজা থেকে স্থানীয় এক গ্রাহক কিস্তিতে পণ্য কেনেন। দীর্ঘদিনেও তিনি পণ্যের টাকা পরিশোধ করেননি। তার কাছে টাকা চাইলে উল্টো হয়রানি, ভয়ভীতি ও হুমকি দিয়ে আসছিলেন; ওয়ালটনকে দেখিয়ে দেবেন বলেও শাসাচ্ছিলেন।

স্থানীয় ওই চক্রটি গত সোমবার (৩০ মার্চ) ওয়ালটন ত্রাণ দেবে বলে দরিদ্র শ্রেণির মানুষের মাঝে মিথ‌্যা প্রচারণা চালায়। এসব অসহায় মানুষকে ওয়ালটনের বন্ধ শোরুমের সামনে দাঁড় করিয়ে ওই চক্রটি ছবি তোলে এবং ভিডিও ধারণ করে। এরপর তাদের সেখান থেকে চলে যেতে বলে।

এদিকে, ওয়ালটনের সংশ্লিষ্ট শাখার কর্মীরা তখন সেফটি রুলস মেনে ওই এলাকার বিভিন্ন বাড়িতে গিয়ে ত্রাণ বিতরণের কাজে ব্যস্ত ছিলেন।

এরপর ওই চক্র ফেসবুকে ওইসব ছবি ও ভিডিও আপলোড করে। সেইসঙ্গে চক্রটি কিছু স্বার্থান্বেষী ব্যক্তির ইন্ধন ও সহযোগিতা নিয়ে স্থানীয় অনলাইন পত্রিকায় প্রতিবেদন প্রকাশ করায়।

ওয়ালটনের পক্ষ থেকে বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসনকে জানালে তারা ওই কুচক্রী মহলকে শনাক্ত করে। একইসঙ্গে ফেসবুক থেকে ভিডিও ও ছবিও মুছে ফেলে।

এদিকে বিষয়টি বানোয়াট ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বুঝতে পেরে স্থানীয় নিউজ পোর্টাল থেকে সংবাদটি মুছে দেওয়া হয়। এছাড়া যেসব সাংবাদিক তাদের ফেসবুকে নিউজটি শেয়ার করেছিলেন তারাও নিজ নিজ ফেসবুক পেজ থেকে মুছে ফেলেন।

দুঃখজনক হলেও সত্য, ঢাকার কিছু দায়িত্বজ্ঞানহীন নিউজ পোর্টাল হুবহু ওই নিউজ কপি করে নিজেদের সাইটে প্রকাশ করে। স্বার্থান্বেষী কিছু ব্যক্তি তাদের ফেসবুক পেজে ওই নিউজ পোস্ট দেন। আরও দুঃখজনক হলো, কিছু লোক প্রকৃত ঘটনা না বুঝেই তাতে অযাচিত, আপত্তিজনক মন্তব্য করেন।

ওয়ালটন কর্তৃপক্ষ ওই দুষ্টচক্রের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে। ওয়ালটন চায়, সত্যি ঘটনা সবাই জানুক।

ওয়ালটন কর্তৃপক্ষ জানায়, পুরো বিশ্ব এখন করোনার বিরুদ্ধে লড়ছে। এসময় অনাকাঙ্ক্ষিত এই অপপ্রচারে ওয়ালটন মর্মাহত। অপপ্রচারে বিভ্রান্ত না হয়ে জনগণকে পাশে থাকতে আহ্বান জানায় ওয়ালটন।

উল্লেখ্য, করোনা মোকাবিলায় ওয়ালটন ভেন্টিলেটরসহ বেশকিছু মেডিক্যাল ইক্যুইপমেন্ট তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে। যা শুধু বাংলাদেশ নয়, অন্যান্য দেশের মানুষের জীবনরক্ষায়ও ভূমিকা রাখবে। এ অবস্থায় ওয়ালটনকে নিরুৎসাহিত করা নির্মমতার শামিল।