বাংলা ও বিশ্বের সকল খবর এখানে
শিরোনাম

এখনই আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালু নয়: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

কূটনৈতিক প্রতিবেদক : যুক্তরাজ্যসহ ইউরোপের কিছু দেশ ফ্লাইট চালু করার জন্য তাগাদা দিচ্ছে। করোনা ইস্যুতে তারা সহযোগিতা করতে চায়। কিন্তু এখনই আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালুর পরিকল্পনা নেই সরকারের। ১১ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটির ঘোষণা রয়েছে। এরপর এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে সরকার।

শনিবার (৪ এপ্রিল) ঢাকায় নিজ বাসায় সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, তারা বলছে ঢাকা-লন্ডন, ম্যানচেস্টার, সিলেট ফ্লাইটগুলো চালু করতে। যাতে তারা বিভিন্ন ধরনের সহযোগিতা করতে পারে। বিশেষ করে করোনা মোকাবিলায়। তারা আমাদের উন্নয়ন সহযোগী। করোনাভাইরাস মোকাবিলায় আমাদের অনেক ডাক্তার, নার্স দরকার হবে, সে সময় ইউরোপ আমাদের তা সরবরাহ করতে পারবে বলছে।

‘আমরা বলেছি, তোমরা সহযোগিতা করতে চাও ঠিক আছে। কিন্তু আমরা ফ্লাইট বন্ধ করেছি দেশের জনগণের স্বাস্থ্যসুরক্ষার কথা বিবেচনা করে।’

মন্ত্রী আরও বলেন, এ বিষয়ে একটি উচ্চপর্যায়ের কমিটি রয়েছে। সিভিল এভিয়েশন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়। একক সিদ্ধান্তে কোনো ফ্লাইট চালু করা যাবে না।

ড. মোমেন আরও বলেন, মজার কথা হচ্ছে- যারা আমাদের ফ্লাইট খুলে দিতে বলছে, যেসব দেশের নিজেদেরই ইন-আউট ফ্লাইট বন্ধ।

ঢাকার যুক্তরাজ্য দূতাবাস থেকে ৭ তারিখের পর্যন্ত ফ্লাইট চালুর বিষয়ে অপেক্ষা করতে বলা হচ্ছে- এ বিষয়ে দৃষ্টি আর্কষণ করলে মন্ত্রী বলেন, তারা কী হিসেবে বলছে আমরা জানি না। তবে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি রয়েছে। তার আগে ফ্লাইট চালুর সম্ভাবনা নেই।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে খবর বেরিয়েছে করোনা ভাইরাসে বাংলাদেশে প্রায় ২০ লাখ লোকের মৃত্যু হতে পারে, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন বলেন, একজন হাইপোথিসিস করে এমন কথা বলেছেন। এটা খুবই দুঃখজনক। ইম্পেরিয়াল কলেজ থেকে এমন একটি ধারণা করা হয়েছে। আমি বলব এটা অতিরঞ্জিত।

তিনি বলেন, করোনা ভাইরাসে বাংলাদেশে যে জনসংখ্যা, সে তুলনায় আক্রান্ত ও মৃত্যু অনেক কম। আমাদের আবহাওয়ার কারণে এটা হতে পারে। আমরা এ ভাইরাস প্রতিরোধে নানা ব্যবস্থাও নিয়েছি। আপনারা দোয়া করেন, এটা যেন পুরোপুরি নির্মূল হয়ে যায়।

মন্ত্রী বলেন, গুজবে কান দেওয়া উচিত নয়। করোনা মোকাবিলায় আমরা ভালোই করছি। সংক্রমণের সংখ্যা কম এবং মৃত্যুর সংখ্যা আরও কম।