বাংলা ও বিশ্বের সকল খবর এখানে
শিরোনাম

করোনা তহবিলে মেয়রের ১৭ মাসের সম্মানিসহ সাড়ে ৩৫ লাখ টাকা

বরিশাল প্রতনিধি : করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে বরিশাল নগরের অসহায় মানুষদের সহযোগিতায় এবার বরিশাল সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে ত্রাণ তহবিল গঠন করা হয়েছে। আর এ ত্রাণ তহবিলে বরিশাল সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ তার ১৭ মাসের সন্মানিসহ করপোরেশন থেকে প্রাপ্য অর্থের পুরোটাই (৩৫ লাখ ৫৪ হাজার টাকা) দিয়ে দিয়েছেন।

সোমবার (৬ এপ্রিল) বিসিসি সূত্রে জানা যায়, করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে বরিশাল নগরের অসহায় মানুষদের সহযোগিতায় ‘বরিশাল সিটি করপোরেশন ত্রাণ তহবিল’ নামে ত্রাণ তহবিল গঠন করা হয়। ওই তহবিলে বিসিসি মেয়র তার ১৭ মাসের সন্মানিসহ করপোরেশন থেকে প্রাপ্য অর্থের পুরোটাই অর্থাৎ ৩৫ লাখ ৫৪ হাজার টাকা দিয়ে দেন। পাশাপাশি এ তহবিলে বরিশাল নগরসহ সমাজের বিত্তবানদের সহায়তার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করায় দেশের অন্যান্য স্থানের ন্যায় বরিশাল নগরের অগণিত মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়ে। এসব অসহায় মানুষদের খাদ্য সহায়তা দেওয়ার জন্য উদ্যোগ নেন মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ। তাই তার তত্ত্বাবধানে নগরের প্রায় ১৬ টি কলোনিসহ বিভিন্ন ওয়ার্ডগুলো গত ৩০ এপ্রিল থেকে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হচ্ছে। পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়া পর্যন্ত নগরজুড়ে এ সহায়তা কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

পাশাপাশি খাবার হোটেল বন্ধ থাকায় ভোগান্তি লাঘবে শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তিরত রোগীদের স্বজনের তিনবেলা খাবারের ব্যবস্থা চালু করেছেন মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ। পাঁচদিন ধরে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (শেবাচিম) বিভিন্ন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন ৫ শতাধিক রোগীর একজন করে স্বজনের মধ্যে প্রতিদিন তার পক্ষ থেকে খাবার বিতরণ করা হচ্ছে।

এরই ধারাবাহিকতায় সোমবার মেয়রের নির্দেশে নগরের অসহায় মানুষদের সাহায্যার্থে এ ত্রাণ তহবিল গঠন করে বরিশাল সিটি করপোরেশন। যার হিসাব নম্বর: STD-0100212748191, জনতা ব্যাংক বরিশাল করপোরেট শাখা।

এ তহবিল গঠনের সঙ্গে সঙ্গে মেয়র নিজে তার দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে চলতি বছরের মার্চ মাস পর্যন্ত সিটি করপোরেশন থেকে তার প্রাপ্ত সম্মানিসহ (জ্বালানি তৈলের বিল ও অন্যান্য ভাতাদি) ৩৫ লাখ ৫৪ হাজার টাকা দিয়ে দেন।

সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষ জানায়, ২০১৮ সালের ২৩ অক্টোবর সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ মেয়র হিসেবে দায়িত্ব দেন। সেই থেকে তার প্রাপ্য সম্মানি, বিভিন্ন ভাতাদি এবং গাড়ির জ্বালানি তেলের কোনোটাই নেননি তিনি। সেই জমা টাকা তিনি করোনা ত্রাণ তহবিলে দিয়েছেন।

মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহর ভাষ্যমতে, তিনি বেতন ভাতাদির সুবিধা নিতে মেয়রের দায়িত্ব নেননি। নিজেকে সবসময় নগরবাসীর সেবক মনে করেন বলেই দুর্যোগকালীন সময়ে নগরবাসীর জন্য কিছু করার চেষ্ঠার অংশ হিসেবেই ত্রাণ তহবিল গঠন করেন।করপোরেশন থেকে এ পর্যন্ত তাকে যতোটুকু আর্থিক সুবিধা দেওয়া হয়েছে তার পুরোটাই তিনি ত্রাণ তহবিলে দিয়েছেন। পাশাপাশি তিনি এ কাজে বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন। মেয়র মনে করেন, সবার সম্মিলিত চেষ্ঠায় করোনার মতো দুর্যোগ মোকাবিলা করা সম্ভব।