বাংলা ও বিশ্বের সকল খবর এখানে
শিরোনাম

লকডাউনে ক্ষুধার জ্বালায় বিষাক্ত গোখরা সাপ শিকার করে রান্না!

লাইট নিউজ ডেস্ক : করোনা ভাইরাসকে ঠেকাতে পুরো ভারত জুড়ে টানা লকডাউন চলছে। ফলে কর্মহীন অসংখ্য মানুষ, বহু জনেরই ঘরে দু’বেলা দু’মুঠো খাওয়ার মতো সংস্থানও নেই। কিন্তু, খিদের জ্বালা বড় জ্বালা। তাই একরকম বাধ্য হয়েই অরুণাচল প্রদেশের একদল শিকারী ১২ ফুটের একটি বিষধর গোখরা সাপ শিকার করে তা দিয়েই খিদে মেটালেন।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে ওই দীর্ঘকায় সাপটি ৩ ব্যক্তি নিজেদের কাঁধে জড়িয়ে রেখেছেন। ভিডিওটি প্রকাশের পরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় তা ভাইরাল হয়ে যায়। ওই ভিডিওতে ৩ শিকারী দাবি করছেন যে তাঁরা জঙ্গলে গিয়ে কিং কোবরা বা গোখরো সাপটিকে ধরে নিয়ে এসেছেন।

এরপর ওই সাপটিকে মেরে তার ছাল ছাড়িয়ে পরিষ্কার করা হয়ে গেলে তাকে টুকরো টুকরো করে কেটে কলাপাতায় রাখেন তাঁরা। এরপর আগুন জ্বালিয়ে ভাল করে ফুটিয়ে রান্না করা হয় ওই বিষধরকে। তারপর তাকে খেয়ে পেটের জ্বালা মেটান তাঁরা।

ওই ৩ শিকারীর মধ্যে একজন বলেন যে করোনাভাইরাসের মহামারী রুখতে যে লকডাউন চলছে তার জেরে তাঁদের বাড়িতে একটি দানাও চাল নেই। তাই কার্যত বাধ্য হয়েই এই পথ বেছে নিতে হয়েছে তাঁদের। সুতরাং আমরা বাধ্য হয়েই খাওয়ার মতো কিছু খুঁজতে জঙ্গলে যাই এবং সেখানেই এই সাপটিকে (কিং কোবরা) খুঁজে পাই, বলেন একজন।

তবে ওই শিকারের ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর তাঁদের বিরুদ্ধে বন্যপ্রাণী সুরক্ষা আইনের অধীনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বনবিভাগের আধিকারিকরা।

দেশের বন্যপ্রাণ সংরক্ষণ আইনে কিং কোবরা বা গোখরো সাপ সংরক্ষিত প্রজাতির সরীসৃপ, একে শিকার করলে জামিন অযোগ্য ধারায় জেল হয়। তবে অরুণাচল প্রদেশে বিপুল সংখ্যায় এই বিষধর সাপ দেখতে পাওয়া যায়।

গবেষকরা সম্প্রতি এই বিষধর গোখরা সাপের একটি নতুন প্রজাতির সন্ধান পেয়েছেন। কিং কোবরার এই নতুন প্রজাতিটি ২০১৯ সালের জুলাই মাসে পাক্কে টাইগার রিজার্ভের জঙ্গলের মধ্যে আবিষ্কার করেন তাঁরা। হ্যারি পটারের একটি চরিত্রের নামে এই প্রজাতিটির নামকরণ করা হয় ট্রাইমিরসরাস সালাজার।

লাইটনিউজ/ডেস্ক