বাংলা ও বিশ্বের সকল খবর এখানে
শিরোনাম

যুক্তরাষ্ট্রে করোনার প্রভাবে গত ছয় সপ্তাহে বেকার ৩ কোটি

 

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে পুরো বিশ্বব্যাপী চলছে লকডাউন প্রক্রিয়া। বন্ধ হয়েছে গেছে যোগাযোগ ব্যবস্থাসহ বেশিরভাগ ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান। ফলে বেকার হয়ে পড়েছে বিশাল অংকের মানুষ। ইতিমধ্যেই বেকারত্বের ছাপ দেখা দিচ্ছে উন্নত বিশ্বের অনেকগুলো দেশে।

যুক্তরাষ্ট্রে করোনার প্রভাবে বেকার হয়ে গেছে অনেক মানুষ। দেশটির শ্রম বিভাগের দেয়া তথ্য মতে গত সপ্তাহে দেশটিতে বেকার ভাতার জন্য নিবন্ধন করেছে ৩.৮৪ মিলিয়ন মানুষ। এদিকে চলমান সংকটে গেল ৬ সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রের বেকার সংখ্যা ৩ কোটিতে পৌঁছেছে। যা মার্কিন ইতিহাসে এই প্রথম।

আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম সিএনবিসিতে প্রকাশিত এক প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

শুধু বেকারত্বই নয়, ধস নেমেছে দেশটির শেয়ারবাজারেও। বর্তমানে আমেরিকায় বেকারত্ব হার সাড়ে ১৮ শতাংশের ওপরে। লকডাউনের কারণে প্রতিদিনই এর সংখ্যা। অর্থনীতিবিদদের মতে, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর চলতি বছরই হয়তো সবচেয়ে বেশি করুণ অবস্থা হবে মার্কিন অর্থনীতির। দেশটির শ্রম অধিদপ্তরের এমন খবর প্রকাশের পরপরই ধস নেমেছে শেয়ারবাজারে।

অর্থনীতিবিদরা বলছেন, আমেরিকা যেখানে বাইরের দেশের লাখ লাখ মানুষের কর্মসংস্থানের যোগান দেয়, সেখানে তারই এমন দুশ্চিন্তার। প্রতিদিনই বাড়ছে বেকারদের সংখ্যা। যেখানে চাকরির নিরাপত্তা নিশ্চিত করাই কষ্টের হয়ে যাচ্ছে।

এদিকে, দেশটির সরকার বলছে, করোনার কারণে প্রায় সবকিছুই বন্ধ রয়েছে। এ কারণে দেশে বেকারত্বের হার বাড়ছে। তবে এই দুর্যোগ মোকাবিলায় সরকার কাজ করে যাচ্ছে। যারা নিবন্ধন করেছে সরকার তাদের জন্য তহবিল গঠন করছে।

আবার জার্মানি, ফ্রান্স, স্পেন ও ইতালিতেও অনেকটা একই পরিস্থিতি একই পরিস্থিতি দেখা যাচ্ছে। একদিকে যেমন বাড়ছে বেকারত্ব, অন্যদিকে সৃষ্টি হচ্ছে অর্থনৈতিক মন্দা। করোনার কারণে সৃষ্ট এই মন্দা থেকে দেশগুলো ২০২১ সালে মধ্যে বের হতে পারবে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল।

লাইট নিউজ