বাংলা ও বিশ্বের সকল খবর এখানে
শিরোনাম

করোনা আক্রান্ত-উপসর্গ নিয়ে ভিড় বাড়ছে পুলিশ হাসপাতালে

স্টাফ রিপোর্টার : দুপুর আনুমানিক ১টা। রাজধানীর পল্টন থানা সংলগ্ন রাজারবাগ কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালের (সিপিএইচ) প্রবেশ পথে প্লাস্টিকের চেয়ারে বসে আছেন আনুমানিক ২০/২১ বছরের এক তরুণ। চোখে মুখে দুশ্চিন্তার ছাপ। তার কাঁধে একটি ব্যাগ ঝুলছে। হাতে আরও একটি প্লাস্টিকের ব্যাগ। সামনে ৫ লিটারের একটি পানির বোতল। তার আশপাশে আরও কয়েকজন তরুণ ব্যাগ ও পানির বোতল নিয়ে ভেতরে প্রবেশের অপেক্ষায় করছেন।

সামনে এগিয়ে যেতেই তরুণদের একজন উচ্চ গলায় বলে উঠলেন, ‘সামনে কেন যাচ্ছেন? এখানে সবাই করোনা রোগী! ভিডিও ছবি তুলতে হলে দূর থেকে তোলেন।’

কিছুক্ষণ পর ওই তরুণদের ভেতরে প্রবেশ করতে দেখা যায়। প্রবেশের সময় গেটে তাদের শরীরে জীবাণুনাশক স্প্রে করে পাশে একটি জায়গায় বসতে দেয়া হয়। একই সময় বেশ কয়েকজনকে হাসপাতাল অভিমুখে যেতে দেখা যায়।

এরা সকলেই পেশায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য। রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে এদের কেউ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আবার কেউবা আক্রান্ত হয়েছেন সন্দেহে পরীক্ষা করাতে এসেছেন।

রোববার (৩ মে) দুপুরে সরেজমিন দেখা গেছে, হাসপাতালের গেটের বাইরে করোনা আক্রান্ত এবং করোনার উপসর্গ নিয়ে আক্রান্তের সন্দেহে বিভিন্ন স্থান থেকে পুলিশ সদস্যরা ভর্তি এবং পরীক্ষার জন্য অপেক্ষা করছেন। তারা প্রায় সকলেই হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা সেবা গ্রহণের জন্য প্রস্তুতি নিয়ে এসেছেন। তবে তারা কেউ গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে তাৎক্ষণিকভাবে কথা বলতে রাজি হননি।

বাংলাদেশ পুলিশ সদরদফতর সূ‌ত্রে জানা গে‌ছে, ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও অন্তত ১১৩ পুলিশ সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে পুলিশ বাহিনীতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৮৫৪ জনে। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে ৯৩ জন ঢাকা মহানগর পুলিশে (ডিএমপি) কর্মরত।

এদিকে, করোনায় আক্রান্ত হয়ে জীবন দিয়েছেন ৫ পুলিশ সদস্য। এদের মধ্যে চারজন ডিএমপি’র একজন এসবি’র সদস্য। তারা হলেন- ডিএমপির কনস্টেবল জসিম উদ্দিন (৪০), এএসআই মো. আব্দুল খালেক (৩৬), ট্রাফিক বিভাগের কনস্টেবল মো. আশেক মাহমুদ (৪৩), পিওএমের এসআই সুলতানুল আরেফিন এবং পুলিশের বিশেষ শাখার এসআই নাজির উদ্দীন (৫৫)।

সূত্র জানায়, গতকাল শনিবার দুপুর পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত ছিলেন পুলিশের ৭৪১ জন সদস্য। করোনায় মোট আক্রান্তের মধ্যে ৪৪৯ জন ডিএমপিতে কর্মরত। করোনার লক্ষণ থাকায় সারা দেশে ৩১৫ পুলিশ সদস্য আইসোলেশনে রয়েছেন। তাদের সংস্পর্শে আসায় আরও এক হাজার ২৫০ জনকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

প্রতিদিনই নতুন করে পুলিশ সদস্যরা সংক্রামক এ ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছেন। এতে ঢাকার ২৫০ শয্যার কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালে রোগীদের জায়গা দিতে হিমশিম খাচ্ছে বলে সূত্র জানিয়েছে।

জানা গেছে, পুলিশের ব্যারাকগুলোতে ধারণ ক্ষমতার চেয়ে বেশি মানুষ থাকায় সংক্রমণ ঠেকাতে আইসোলেশনের জন্যে অন্তত সাতটি হোটেল এবং কোয়ারেন্টাইনের জন্য কয়েকটি স্কুল ভাড়া নিয়েছে ডিএমপি।

উল্লেখ্য, সারা দেশে প্রায় দুই লাখ পুলিশ সদস্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষার নিয়ো‌জিত র‌য়ে‌ছেন।

এদিকে, দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাস আরও দুজনের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ১৭৭ জনে। একই সময়ে আক্রান্ত হিসেবে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন আরও ৬৬৫ জন। এতে দেশে ভাইরাসটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল নয় হাজার ৪৫৫ জনে। তবে খুশির সংবাদ হলো- দেশে করোনা থেকে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১০৬৩ জন।

লাইট নিউজ