বাংলা ও বিশ্বের সকল খবর এখানে
শিরোনাম

নারায়ণগঞ্জে সেপটিক ট্যাংকের বিস্ফোরণে প্রাণ গেল দুই ভাইসহ ৩ জনের

 

নারায়ণগঞ্জে একটি ভবনের সেপটিক ট্যাংক বিস্ফোরিত হয়ে দু্ই ভাইসহ এক অন্তঃসত্ত্বা নারীর মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো ৫ জন। শুক্রাবার সকাল ৬টার দিকে বন্দর উপজেলার কবরস্থান রোড দিঘীর পাড় মোল্লাবাড়ি এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- ওই ভবনের নিচ তলার ভাড়া থাকা খোরশেদ আলমের দুই ছেলে জিসান (৮) ও মাসমুন (১৩) এবং পার্শ্ববর্তী টিনশেড বাসার হুমায়ুন কবিরের স্ত্রী আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা লাবনী (৩০)।

এ ঘটনায় আহতরা হলেন- নিহত লাবনীর মেয়ে নাবিলা (৮), পার্শ্ববর্তী একটি ভবনের মালিক লেকমত শেখ (৫৫), তার ছেলে রুবেল শেখ (২৮) ও মেয়ে তামান্না (১২) এবং সহিদ (৪৫) নামের একজন। তাদেরকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসাপতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ভোরের দিকে ওই এলাকার রফিকুল ইসলাম হাসানের ‘রাবেয়া মঞ্জিল’ নামের পাঁচ তলা ভবনের নিচ তলার সেপটিক ট্যাংকটি বিকট শব্দে বিস্ফোরিত হয়। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যায় সেপটিক ট্যাংকটির ওপরের কক্ষে থাকা দুই ভাই জিসান ও মাসমুন। এ ছাড়া বিস্ফোরণের ফলে পাশের একটি চার তলা ভবনের দেয়াল ধসে পড়ে একটি টিনশেড বাড়ির ওপর। এতে ওই ঘরে থাকা লাবণী নামের এক অন্তঃসত্ত্বা নারী গুরুতর আহত হয়। পরে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান তিনি।

এ ঘটনায় লাবণীর আট বছরের মেয়ে নাবিলাও গুরুতর আহত হয়। পাশাপাশি দেয়াল ধসে পড়া ভবনের মালিক ও তার ছেলে মেয়েসহ চার জন আহত হন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক আব্দুল্লাহ আল আরেফীন বলেন, বিস্ফোরণের খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনাস্থলে যান। এ সময় ভবনটির নিচ তলা থেকে দুই শিশুর মরদেহ উদ্ধার করেন তারা। পাশপাশি ৬ জন আহতকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠান। তবে আহতদের মধ্যে অন্তঃসত্ত্বা এক নারী হাসপাতালে নেওয়ার আগেই পথে মারা যায়। পরে তাকে বাড়িতে ফিরিয়ে নিয়ে আসেন স্বজনরা।

লাইট নিউজ