বাংলা ও বিশ্বের সকল খবর এখানে
শিরোনাম

স্বাস্থ্যবিধি না মানলে দোকান বন্ধ: মালিক সমিতি

স্টাফ রিপোর্টার : দোকান কর্তৃপক্ষ নিয়ম মানলেও মানছেন না ক্রেতারা। আবার কোনো কোনো দোকানে নেই করোনা সংক্রমণ নিরোধক ব্যবস্থা। অন্যদিকে যারা সুরক্ষা নিশ্চিত করছেন, ক্রেতার অসচেতনতায় তারাও রয়েছেন ঝুঁকিতে। সব মিলে নিয়ম না মানার পাল্লা ভারি থাকায় সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা থেকেই যাচ্ছে। তাই নিয়ম মেনে পুরোপুরি সুরক্ষা নিশ্চিত না করলে দোকান বন্ধ করার আহ্বান দোকান মালিক সমিতির।

কোনো কিছুর তোয়াক্কা না করে অনেকটা চোর পুলিশ খেলার মতো নিয়ম না মানার লুকোচুরি চলছে রাজধানীন ঈদ উপলক্ষে সীমিত পরিসরে খোলা দোকানগুলোতে। একদিকে বিক্রেতাদের উদাসীনতা অন্যদিকে ক্রেতারাও মানছেন না সামাজিক দূরত্ব।

অনেক অভিভাবককে শিশুদের নিয়ে বাজারে নিয়ে আসতে দেখা যায়। কোথাও কোথাও নেয়া হয়েছে হাত, জুতা জীবাণুমুক্ত রাখার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাপনা। মাপা হচ্ছে তাপমাত্রা। তবে খোলা রাখা শপিং মলগুলোতে ঈদের ভিড় বাড়লে, সামাজিক দূরত্ব না মানায় ঝুঁকিও বাড়ার আশঙ্কা তাদের।

ক্রেতারা বলেন, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য অবশ্যই একটি দোকানের কতজন ঢুকতে পারে সেটি নির্ধারণ করতে হবে। না হলে বিভিন্নভাবে করোনার সংক্রমণ হতে পারে।

আড়ং এর সিইও আশরাফুল আলম বলেন, ক্রেতাদের বিভিন্ন ভাবে উৎসাহিত করা হচ্ছে তারা যেন বিকাশ বা কার্ডের মাধ্যমে পরিশোধ করে। কারণ নগদ টাকার মাধ্যমে যে করোনার ঝুঁকি থাকে সেটি এড়ানোর সম্ভব হয়।

এদিকে, সুরক্ষা নিশ্চিত না করে কোনো দোকান খোলা রাখা হলে বন্ধ করে দেয়ার কথা জানান বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির সভাপতি মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন।

পাশাপাশি যারা ঈদের বাজার করতে বাইরে যাবেন তাদেরও নিজেদের, পরিবারের, বিক্রেতা ও অন্যান্য ক্রেতার সুরক্ষার কথা ভেবে দায়িত্বশীল নাগরিকের মতো আচরণ ও সচেতন হওয়ার আহ্বান জানায় দোকান মালিক সমিতি।

লাইট নিউজ