বাংলা ও বিশ্বের সকল খবর এখানে
শিরোনাম

ইসরায়েলকে যে বার্তা দিলো সংযুক্ত আরব আমিরাত

 

সংযুক্ত আরব আমিরাতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডক্টর আনওয়ার গারগেস বলেছেন, পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি দখল পরিকল্পনার স্পষ্ট বিরোধিতা করি আমরা। মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক একটি ইহুদি সংগঠনের নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে এ কথা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে খবর দিয়েছে আল-আরাবিয়া।

গারগেস বলেন, সংযুক্ত আরব আমিরাত আরব অঞ্চলের একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ। আমরা ফিলিস্তিন-ইসরায়েল দ্বন্দ্বে দ্বি-রাষ্ট্রনীতি ছাড়া কোনো উপায় দেখি না। আমিরাতও চায়, ওই অঞ্চলে শান্তি ফিরে আসুক। দুই পক্ষ আলচনা করে সব সমস্যার সমাধান করে ফেলুক।

পশ্চিম তীরে চলমান অস্থিরতা নিয়ে এর আগেও মন্তব্য করেছেন গারগেস। গত ১ জুন এক টুইটে তিনি বলেন, ইসরায়েলের এই পরিকল্পনা হবে অবৈধ। এর ফলে ওই অঞ্চলে শান্তি ফিরিয়ে আনার কার্যক্রম মুখ থুবড়ে পড়বে। সেইসঙ্গে ফিলিস্তিনিদের সার্বভৌমত্বকেও ঝুঁকিতে ফেলবে।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত আমিরাতের রাষ্ট্রদূত আল-ওতাইবা এই পরিকল্পনা নিয়ে সাবধান করেছেন। এ বিষয়টিও তুলে ধরেছেন গারগেস।

আল-ওতাইবা বলেছিলেন, ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড দখলের সঙ্গে সঙ্গেই আরব রাষ্ট্রগুলোর সঙ্গে ইসরায়েলের নিরাপত্তা, অর্থনৈতিক ও সাংস্কৃতিক বিরোধিতা বেড়ে যাবে। সংযুক্ত আরব আমিরাতও এই তালিকায় আছে।

এ জন্য ইসরায়েলের প্রতি উপদেশ দিয়ে তিনি বলেন, ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড দখলের পরিকল্পনা পরিহার করুন। এই পদক্ষেপে আরব রাষ্ট্রগুলোর সঙ্গে ইসরায়েলের সম্পর্কে উন্নতি হবে না। তাছাড়া এই পদক্ষেপ আন্তর্জাতিক আইন ও ফিলিস্তিনের সার্বভৌমত্বের লঙ্ঘন।

তিনি সতর্ক করে বলেন, ভূখণ্ড দখল হলে সহিংসতা বেড়ে যাবে। ‘উগ্রবাদী সন্ত্রাসবাদে’র উত্থান হবে।