বাংলা ও বিশ্বের সকল খবর এখানে
শিরোনাম

সিজনাল জ্বরের লক্ষণ জেনে থাকুন আতঙ্কমুক্ত

 

বাংলাদেশের আবহাওয়া যখন হালকা গরম থেকে প্রচণ্ড গরমের দিকে অগ্রসর হচ্ছিলো, ঠিক তখন করোনাভাইরাস তার উপস্থিতি জানান দেয়। এখন আমাদের দেশে বর্ষা চলে এসেছে। এখন এমন একটা সময় যে, হঠাৎ ঠাণ্ডা হঠাৎ গরম পড়ে। অর্থাৎ বৃষ্টি হলে ঠাণ্ডা লাগে। আবার বৃষ্টি চলে গেলে প্রচণ্ড গরম পড়ে। আবহাওয়ার এমন বিচিত্র আচরণের সঙ্গে দেহঘড়ি খাপ খাইয়ে নিতে একটু সময় নেয়। এটা মানব দেহের স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। ফলে এ সময় বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই হালকা ঠাণ্ডা-কাশি ও জ্বর দেখা দেয়।

তাছাড়া একটু বৃষ্টির পানি শরীরে পড়লে অনেকেরই জ্বর ও হাঁচি-কাশি শুরু হয়ে যায়। এগুলো স্বাভাবিক ব্যাপার। চিন্তার কথা হলো, এই মুহূর্তে করোনাভাইরাসে কাঁপছে বিশ্ব। আর করোনার উপসর্গের মধ্যে জ্বর, হাঁচি, কাশিও আছে। তাই অনেকেই সিজনাল ভাইরাস জ্বরে আক্রান্ত হলে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ভেবে ভয় পেয়ে যান। তাই আসুন জেনে নেই, ভাইরাস জ্বরের লক্ষণগুলো কী কী।

ভাইরাস জ্বরের লক্ষণ

১. ভাইরাস জ্বরে আক্রান্ত হলে জ্বর খুব বেশি হবে না। হালকা বা মাঝারি জ্বর হলে বুঝবেন আপনি ভাইরাস জ্বরে আক্রান্ত হয়েছেন। ভাইরাস জ্বর আসে আবার কিছু সময় পর সেরেও যায়। এ সময় শরীর ম্যাজম্যাজ করে।

২. ভাইরাস জ্বরের আরেকটি লক্ষণ হলো- জ্বরের সঙ্গে সামান্য সর্দিভাব থাকবে। সর্দির সঙ্গে নাকের পানি পড়াটাও স্বাভাবিক।

৩. চিকিৎসকরাও এটাও নিশ্চিত করেছেন যে, ভাইরাস জ্বরের আরেকটি স্বাভাবিক লক্ষণ হলো- হাঁচি-কাশিও থাকবে।

৪. জ্বরের সঙ্গে হালকা থেকে মাঝারি ধরনের ব্যথা হতে পারে। এ ব্যথা পুরো শরীরে অথবা শরীরে কোনো কোনো অংশে হতে পারে।

৫. মাথা ধরাও থাকতে পারে।

এ সময়ে কারো জ্বর দেখা দিলে খুব সাবধানতা অবলম্বন করুন। নিয়মিত মাস্ক পড়ুন। রোগীর সংস্পর্শে আসার আগে মাস্ক ব্যবহার করুন। পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখুন।