বাংলা ও বিশ্বের সকল খবর এখানে
শিরোনাম

আসছে প্রবাসীদের করুণ জীবনের গান

দিনের পর দিন তারা পড়ে থাকেন বিদেশে। দেশের মাটি, আলো-বাতাস থেকে তারা বঞ্চিত। বাবা-মা-স্ত্রী-সন্তানের ভালোবাসাকে তারা ত্যাগ করে অক্লান্ত পরিশ্রমে জীবন কিংবা ভাগ্যের চাকা ঘুরিয়ে চলেন কেবলই একটু ভালো থাকার প্রত্যাশায়। এদিকে মাস শেষ না হতেই পরিবারের সদস্যরা নানা বায়না নিয়ে অপেক্ষায় থাকে প্রবাসে থাকা মানুষটি টাকা পাঠাবে। সবার চাহিদা মেটাবে।

কিন্তু ক’জন সেইসব প্রবাসীদের দিনযাপনের খবর রাখে! ক’জনই জানতে চায় কেমন আছেন সবকিছু ছেড়ে জীবীকার তাগিদে বিদেশে পড়ে থাকা মানুষটি। তারা কী খাচ্ছে, কী করছে- এটুকু প্রশ্ন করারও সময় হয় না হয়তো কারো। সবার আগ্রহ শুধু কবে আসবে টাকা? প্রবাসে যাওয়া মানুষটি যেন রক্ত-মাংসের বদলে তখন শুধুমাত্র টাকার মেশিন।

এমনই এক গল্প নিয়ে তৈরি হয়েছে গান ‘টাকার মেশিন’। রিপন মাহমুদের কথায় আবেগমাখা এ গানটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন আকাশ মাহমুদ। এর সুর-সংগীতও করেছেন শিল্পী নিজেই। গানটি ভিডিও আকারে শিগগিরই প্রকাশ হবে ভয়েস টুডে’র ইউটিউব চ্যানেলে। সম্প্রতি প্রকাশ হয়েছে এর প্রমো। সেটি এরইমধ্যে বেশ আলোচনায় এসেছে।

এর ভিডিওতে মডেল হিসেবে দেখা যাবে সংগ্রাম, জিতু ও রনিকে। থাকবেন শিল্পী আকাশ মাহমুদও। এখানে চারজনকেই দেখা যাবে প্রবাসীদের চরিত্রে। যারা পরিবারকে একটু ভালো রাখার প্রত্যাশায় জীবনের সব ব্যথা-যাতনা বুকের ভেতর লুকিয়ে রাখেন। ভিডিওটি পরিচালনা করেছেন এন এ খোকন।

তিনি এই গান ও ভিডিও নিয়ে বলেন, ‘খুবই চমৎকার কথা দিয়ে সাজানো এই গান সহজেই হৃদয় ছুঁয়ে যায়। গানটির সুর ও সংগীতও হয়েছে শ্রুতিমধুর। চেষ্টা করেছি গানের গল্পের সঙ্গে মিল রেখে ভিডিওটি তৈরি করতে। আশা করছি আমাদের এই প্রয়াস সবার মন ভরাবে।’

গানটির শিল্পী আকাশ মাহমুদ বলেন, ‘প্রবাসীদের জীবনের গল্প নিয়ে এই গানটি তৈরি করেছি আমরা। যাদের হাতে ঘামে ভেজা টাকায় এই দেশের উন্নয়ন গতিশীল তাদের জন্য একটু ভালোবাসা যেন সবার মনে জন্মায় সেই ভাবনা থেকেই এই গানটি। আমি এই গানের আয়োজক ভয়েস টুডে’র কর্ণধার খোকন ভাইকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি চমৎকার গানটি গাওয়ার সুযোগ করে দেয়ার জন্য। এর গীতিকার রিপন মাহমুদ ভাইকেও অনেক ধন্যবাদ, তিনি দারুণ কথাগুলো লিখেছেন আমার জন্য। আশা করছি এই গান সবার মন জয় করবে।’

গীতিকার রিপন মাহমুদ বলেন, ‘নিজের বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকে গানটি লিখেছি। যারা ভাগ্য বদলাতে বিদেশে পাড়ি দিয়েছেন তাদের পরিবারের সদস্যরা যেন তাদের শুধু টাকার মেশিন মনে না করে সেটাই বোঝানোর চেষ্টা করেছি এই গানে। পরিবারের মানুষদের একটু আদর, একটু স্নেহ, একটু প্রেম প্রবাসে থাকা ভাইবোনদের বেঁচে থাকাকে অনেক বেশি রঙিন করে তুলতে পারে। তাদের সাহস ও প্রেরণা যুগাবে। এ উপলব্দিটা যেন ‘টাকার মেশিন’ গান শুনে জন্মায়। তবেই আমাদের সবার শ্রম স্বার্থক হবে।’

লাইট নিউজ