বাংলা ও বিশ্বের সকল খবর এখানে
শিরোনাম

‘উইঘুর মুসলিমদের ওপর চীনের আচরণ গণহত্যার সমান’

সংখ্যালঘু মুসলিম উইঘুরদের ওপর চীনের আচরণ গণহত্যার সমান বলে অভিযোগ করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

শুক্রবার আন্তর্জাতিক একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে এই অভিযোগ করেন মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা রবার্ট ও’ব্রায়েন।

চীনের একাধিক পদক্ষেপের সমালোচনা করতে গিয়ে তিনি সংখ্যালঘু নিপীড়নের অভিযোগও তোলেন। রবার্ট বলেন, ‘গণহত্যা যদি না-ও বা হয়, শিনজিয়াংয়ে যা চলছে, তা গণহত্যারই সমান।’

করোনা মহামারী পরিস্থিতির জন্য সরাসরি চীনকে কাঠগড়ায় তুলেছে যুক্তরাষ্ট্র। তা নিয়ে দু’দেশের মধ্যে উত্তেজনা খানিকটা হলেও থিতিয়ে এসেছিল।

কিন্তু সংখ্যালঘু নিপীড়নের অভিযোগকে হাতিয়ার করে ফের আগুনে ঘি ঢাললো প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন। তাদের দাবি, দেশের সংখ্যালঘু মুসলিমদের প্রতি চীন যে আচরণ করছে, তা গণহত্যারই সমান। খবর রয়টার্সের।

দেশের উত্তর-পশ্চিমের স্বশাসিত শিনজিয়াং প্রদেশে চীন সংখ্যালঘু উইঘুর এবং অন্যান্য মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষের ওপর নৃশংস অত্যাচার চালাচ্ছে বলে বেশ কয়েক বছর ধরেই অভিযোগ সামনে আসছে।

গত জুন মাসে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও অভিযোগ করেন, সরকারের নির্দেশে সেখানে জোর করে মুসলিমদের নির্বীজকরণ, গর্ভপাত এবং পরিবার সংকোচনে বাধ্য করা হচ্ছে। এমনকি মুসলিম নারীদের মাথা মুড়িয়ে, সেই চুল দিয়ে কেশসজ্জার নানা পণ্য তৈরি করে চীন তা বিদেশে পাঠাচ্ছে বলেও অভিযোগ সামনে আসে।

জুন মাসেই মার্কিন শুল্ক ও সীমান্ত নিরাপত্তা দফতর শিনজিয়াং প্রদেশ থেকে আসা তেমন বহু পণ্য আটক করে। সেগুলো মানুষের চুল দিয়ে তৈরি বলে নিশ্চিত করে তারা।

ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে সেই প্রসঙ্গও টেনে আনেন রবার্ট। তিনি বলেন, ‘চীনে সরকারি নির্দেশে জোর করে উইঘুর মহিলাদের মাথা মুড়িয়ে দেয়া হচ্ছে। তা দিয়ে তৈরি করা হচ্ছে কেশসজ্জার নানা পণ্য, যা আমেরিকাতেও পাঠানো হয়েছে।’

তবে মার্কিন সরকারের পক্ষ থেকে চীনের বিরুদ্ধে গণহত্যার অভিযোগ এই প্রথম। এতে বেইজিং আরও বিপাকে পড়তে পারে বলে মত কূটনীতিকমহলের।

রবার্টের মন্তব্য নিয়ে এখন পর্যন্ত কোনো মন্তব্য করেনি চীন। শিনজিয়াংয়ে উইঘুর এবং অন্য মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষের ওপর অত্যাচার চালানোর অভিযোগে ইতোমধ্যেই চীনের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে একাধিক সংগঠন।

তাদের অভিযোগ, সেখানে ১০ লাখের বেশি মুসলিমকে বন্দি করে রেখেছে চীন। প্রতিনিয়ত সেখানে মানবাধিকার লঙ্ঘন এবং গণহত্যার মতো ঘটনা ঘটছে।

লাইটনিউজ