বাংলা ও বিশ্বের সকল খবর এখানে
শিরোনাম

চট্টগ্রামে বিমানের সিটের নিচে সাড়ে ১৭ কেজি সোনা

ডেস্ক রিপোর্ট :   চট্টগ্রামে শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আবুধাবি থেকে আসা উড়োজাহাজে অভিযান চালিয়ে অবৈধভাবে আনা বিপুল সোনা জব্দ করেছেন শুল্ক গোয়েন্দা ও কাস্টমস হাউসের কর্মকর্তারা। গত সোমবার বাংলাদেশ বিমানের বিজি ১২৮ ফ্লাইটটি চট্টগ্রামে পৌঁছার পর নিয়মিত তল্লাশির সময় দুটি সিটের নিচে লুকিয়ে রাখা সাড়ে ১৭ কেজি সোনার বার উদ্ধার করা হয়। আটক মোট ১৫০টি সোনার বারের বাজারমূল্য প্রায় ১০ কোটি টাকা। এ ঘটনায় সংশ্লিষ্ট কোনো যাত্রীকে আটক করতে পারেনি কাস্টমস।

ধারণা করা হচ্ছে, এসব সোনার গন্তব্য ছিল ঢাকা। আবুধাবি থেকে চট্টগ্রাম নেমে ঢাকায় যেত। কারণ ফ্লাইটটি আবুধাবি থেকে সরাসরি চট্টগ্রাম পৌঁছে; এরপর বাকি যাত্রী নিয়ে ঢাকায় যেত। চট্টগ্রামে যাত্রী নেমে যাওয়ার পর সেই সিটে অভ্যন্তরীণ রুটের যাত্রী উঠতেন। আর সেই যাত্রী ওই সব সোনার বার বহন করে নিয়ে যেতেন।

চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে কর্মরত শুল্ক গোয়েন্দা দলের সহকারী পরিচালক নুরুন নাহার লিলি কালের কণ্ঠকে বলেন, যাত্রী নেমে যাওয়ার পর নিয়মিত তল্লাশির অংশ হিসেবে উড়োজাহাজে তল্লাশি চালানোর পর দুটি সিটে বিশেষভাবে লুকানো অবস্থায় ১৫০টি অবৈধ সোনার বার পাওয়া হয়। যাত্রী নেমে যাওয়ায় জড়িত কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি। পরিত্যক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা এসব অবৈধ সোনার বারের বাজারমূল্য প্রায় ১০ কোটি টাকা। দেশে কভিড-১৯ মহামারি শুরুর পর চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে অবৈধ সোনার বার উদ্ধারের এটি সবচেয়ে বড় চালান।

উল্লেখ্য, কভিড ধাক্কা কাটিয়ে ওঠার পর মধ্যপ্রাচ্যের দেশ আরব আমিরাতের আবুধাবি-দুবাই-শারজাহ থেকে সীমিত পরিসরে যাত্রীবাহী বিমান চলাচল করছে। নিয়মিত ফ্লাইট চলাচল শুরু হয়নি। এরই মধ্যে আমিরাত থেকে বৈধভাবে সোনার বার আনার হিড়িক পড়েছে। শুল্ক পরিশোধ করে প্রতি ফ্লাইটে বিপুল পরিমাণ সোনার বার বৈধভাবে আনছেন প্রবাসীরা। এরই মধ্যে এই অবৈধ চালান ধরা পড়ল কাস্টমসের হাতে।