বাংলা ও বিশ্বের সকল খবর এখানে
শিরোনাম

সাইফের ফিফটিতে জয় পেল প্রাইম দোলেশ্বর

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে (ডিপিএল) আজ মিরপুর শেরেবাংলায় শাইনপুকুরের বিপক্ষে ৪ উইকেটে জয় পেয়েছে প্রাইম দোলেশ্বর।

টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে দুর্দান্ত শুরু করে দোলেশ্বরকে সামনে ১৬৩ রানের চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেয় শাইনপুকুর।

দুই বল বাকি থাকতে ৬ উইকেটে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় দোলেশ্বর।

দোলেশ্বরের এ জয়ে সবচেয়ে বেশি অবদান টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান সাইফ হাসান ও ফজলে মাহমুদের।

শাইনপুকুরের বোলার তানভির ও সুমনকে তুলোধোনা করে মাত্র ৩৫ বলে ফিফটি হাঁকিয়েছেন সাইফ। যেখানে ৩ বাউন্ডারি ও ৪টি ছক্কার মার রয়েছে।

ফিফটি না পেলেও ৩৩ বলে ৪১ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেছেন ফজলে। ৬টি বাউন্ডারি আর ১টি ছক্কা মেরেছেন তিনি।

১৩ রানের মাথায় ওপেনার তৌফিক খানের আউটের পর হাল ধরেন সাইফ। দলীয় রান ২৯-এ পৌঁছালে আউট হয়ে যান অপর ওপেনার উজ্জ্বলও।

এরপর সাইফের সঙ্গে জুটি বাঁধেন ফজলে মাহমুদ। দুজনে দুর্দান্ত ব্যাট করে খেলা নিয়ে যান ৮৪ রানে।

তাদের ৫৫ রানের জুটি ভাঙেন তানভির ইসলাম। ১২.৫ ওভারে তানভিরের বলে কাটায় কাটায় ৫০ রানে আউট হয়ে ফেরেন সাইফ।

সাইফের আউটের সময় ফজলের ব্যক্তিগত সংগ্রহ ছিল ২০ বলে ১৬ রান। এর পর শামিমের সঙ্গে জুটি গড়ে এগিয়ে যান ফজলে।

১৭তম ওভারে মোহর শেখের বলে ৪১ রানে ফজলে যখন আউট হন তখন জয়ের জন্য বাকি আর ৩৫ রানের।

যা ঝড়ো ব্যাটিং করে সহজেই তুলে নেন অধিনায়ক ফরহাদ রেজা। ২টি করে বাউন্ডারি ও ছক্কায় ১১ বলে ২৭ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি।

৪ উইকেটে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন।

এর আগে টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে দুর্দান্ত শুরু করে শাইনপুকুরের দুই ওপেনার তানজিদ হাসান তামিম ও সাব্বির হোসেন।

পেসার ফরহাদ রেজাকে বেদম পিটুনি দিয়ে ৪.৩ ওভারে ৪৯ রানে স্কোরবোর্ডে জমা করেন তারা।

এরপরই প্রথম ব্রেকথ্রু এনে দেন অফস্পিনার শামিম পাটোয়ারি।

তার বলে স্লগ সুইপ করতে গিয়ে আউট হন তানজিদ তামিম। ব্যাকফুটের শট ফ্রন্টফুটেই খেলতে গিয়ে আকাশে ক্যাচ তুলে দেন তামিম। নিজের বলে নিজেই পিচের ৫ গজ দূরে দাঁড়িয়ে ধরে ফেলেন শামিম পাটোয়ারি।

১৬ বলে ২৫ রানে আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন বাঁহাতি এই ওপেনার। এর কয়েক বল পরে দুটি বিশাল ছক্কাও হাঁকিয়ে ডানহাতি পেসার রেজাউর রহমান রাজার বলে আউট হন সাব্বির।

১৯ বলে খেলা ৩৬ রানের ইনিংসটি শেষ হয় তার।

দুই ওপেনারের বিদায়ের পর নামেন রবিউল ইসলাম রবি আর মাহিদুল ইসলাম অংকন। ৩২ বলে ৪৪ রানের এক বিধ্বংসী ইনিংস খেলেন অংকন।

রবিউল করেন ৩৬ বলে ৩৪ রান। বাকিরা আর কেউ তেমন একটা রান করতে পারেননি। অধিনায়ক তৌহিদ হৃদয় ৮ বলে ১০ রান করে রেজাউর রহমান রাজার বলে আউট।

ইনিংসের শেষ বলে তুখোড় ফিল্ডার শামিম পাটোয়ারির দারুণ ক্যাচের শিকার হন ঝড়ো ইনিংস খেলা অংকন।

বিউল ও অংকরেন ইনিংসে ওপর ভর করেই ২০ ওভার শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৬২ রানের লড়াকু পুঁজি পায় শাইনপুকুর।

৪ ওভারে ২১ রানে ২ উইকেট শিকার করেছেন শামিম পাটোয়ারি। ৪ ওভারে ২২ রান দিয়ে ২ উইকেট পেয়েছেন পেসার রেজাউর রহমানও।