বাংলা ও বিশ্বের সকল খবর এখানে
শিরোনাম

শ্বাসকষ্ট দূর করে এলাচ, আরও যত গুণ

আমাদের সবার পরিচিত মসলা এলাচ। অনেকের ধারণা— এটি শুধু রান্নার স্বাদ বৃদ্ধি করে। তরকারির স্বাদ বৃদ্ধির পাশাপাশি এলাচের বহুগুণ রয়েছে।

প্রাকৃতিক মাউথ ফ্রেশনার হিসেবে খ্যাতি রয়েছে এই মসলাটির। আর হজমের উপকার করে, হার্টকে ভালো রাখে এবং গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা কমানোর পাশাপাশি আরও অনেক স্বাস্থ্য উপকার রয়েছে বহুগুণী এ মসলাটির। আসুন জেনে নিই সেই সম্পর্কে—

১. হজমে উপকার করে

এলাচ হচ্ছে একটি প্রাকৃতিক কার্মিনেটিভ এবং এটি হজম গতিকে উন্নত করতে সাহায্য করে। এ ছাড়া পেটের আস্তরণের প্রদাহ কমাতে, হার্ট পোড়া এবং বমি বমি ভাবের সঙ্গে লড়াই করতেও অনেক কার্যকরী এলাচ। এটি অ্যাসিডিটি এবং পেট খারাপের উপসর্গ কমাতে পারে।

আয়ুর্বেদিক চিকিৎসা বলছে, এলাচ পেটে পানি এবং বায়ুর বৈশিষ্ট্যগুলো হ্রাস করে দক্ষতার সঙ্গে খাবার হজম করতে সহায়তা করে।

২. মাথাব্যথা কমায়
অনেক সময় বদহজমের কারণে মাথাব্যথা হয়ে থাকে। এমনটা হলে তার দারুণ একটি প্রতিকার হিসেবে বেছে নিতে পারেন এলাচ। এর জন্য আপনি সবচেয়ে বেশি উপকৃত হতে পারেন এলাচ দিয়ে চা বানিয়ে খেলে। এলাচ ও চায়ের মিশ্রণ বদহজমের সমস্যা সমাধান করে মাথাব্যথা দূর করতেও অনেক কার্যকর হিসেবে কাজ করবে।

৩. মুখের দুর্গন্ধ দূর করে
প্রাকৃতিক মাউথ ফ্রেশনার হিসেবে অনেক খ্যাতি রয়েছে এলাচের। জীবাণুনাশক বৈশিষ্ট থাকার পাশপাশি এর শক্তিশালী স্বাদ ও মনোরম গন্ধ রয়েছে। এ কারণে এটি মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে অনেক কার্যকরী ভূমিকা রাখে।

৪. গ্যাস্ট্রিক ও পেটের জ্বালাপোড়া কমায়
এলাচে থাকা বিভিন্ন উপাদান আমাদের পেটের মিউকোসাল আস্তরণকে শক্তিশালী করতে সহায়তা করে। এ ছাড়া আমাদের মুখের লালা উৎপাদন বাড়িয়ে দিতে সহায়তা করে এটি। আর মুখের লালা আমাদের ক্ষুধা বাড়িয়ে দিতে এবং পেটের জ্বালাপোড়া কমাতে সহায়তা করে।

৫. শ্বাসকষ্ট দূর করে
এলাচ আপনার ফুসফুসের মধ্যে রক্ত সঞ্চালন বাড়িয়ে দিয়ে হাঁপানি, ঠাণ্ডা এবং কাশির মতো শ্বাসকষ্ট সমস্যা দূর করতে সহায়তা করে। আয়ুর্বেদ অনুযায়ী এলাচ একটি উষ্ণ মসলা হিসাবে পরিচিত, যা শরীরকে অভ্যন্তরীণভাবে উত্তপ্ত করে কফ বের করে দিতে সাহায্য করে এবং বুকের যানজট দূর করে।

৬. হৃদস্পন্দন নিয়মিত করতে উপকারী
পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম এবং ম্যাগনেসিয়ামের মতো খনিজ পদার্থসহ অপরিহার্য ইলেক্ট্রোলাইটের জন্য একটি সোনার খনি হচ্ছে এলাচ। আমাদের শরীরে রক্ত, তরল এবং কোষের অন্যতম প্রধান উপাদান হলো পটাশিয়াম। আর অত্যাবশ্যক এই খনিজের প্রচুর পরিমাণে সরবরাহ করে আপনার হৃদস্পন্দনকে নিয়মিত করতে সাহায্য করে এবং আপনার রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে সহায়তা করতে পারে এলাচ।

৭. রক্তাল্পতায় উপকারী
এলাচে থাকা অন্যতম প্রধান উপাদান হলো তামা, আয়রন এবং প্রয়োজনীয় ভিটামিন যেমন— রাইবোফ্লাভিন, ভিটামিন সি ও নিয়াসিন। আর এসব উপাদান লোহিত রক্তকণিকা এবং সেলুলার বিপাক উৎপাদনে অপরিসীম ভূমিকা পালন করে। এ ছাড়া কপার, রাইবোফ্লাভিন, ভিটামিন সি এবং নিয়াসিন রক্তাল্পতার বিরুদ্ধে লড়াই করতে কাজ করে।